»স্বাধীনতার ৪৪ বছর পর বাইশারীতে বিদ্যুতের আলো »৫ ডিসেম্বর শহীদ দৌলত দিবস : জাতীয়ভাবে দিবসটি পালনের দাবি শহীদ পরিবারের »ধর্মপুর দরবার শরীফের পীরের উপর হামলা্ : রামুতে মানববন্ধন : জড়িতদের শাস্তি দাবি »রামুর উখিয়ারঘোনায় আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল উচ্চ বিদ্যালয় ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন »রামুর আল হাবিব লাইব্রেরীর মালিকের বসত ঘর পুড়ে ছাই ॥ ক্ষয়ক্ষতি ৩০ লক্ষ টাকার »বাংলাদেশ ফটোজার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের জাতীয় সম্মেলনে ইকবাল সোবহান »কক্সবাজার রেল লাইন সম্প্রসারণের কাজ তদারকিতে এডিবি ও এম,পি কমল »কক্সবাজার জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাবু পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র নির্বাচিত হওয়ায় যুবলীগের বিশাল সংবর্ধনা »কক্সবাজার স্টেডিয়ামে সাবেক তারকাদের জমজমাট প্রীতি ফুটবল ম্যাচ ৩০ নভেম্বর »সাংবাদিক তপন চক্রবর্তী বিএফইউজে’র যুগ্ম মহাসচিব নির্বাচিত হওয়ায় রামু নিউজ ডট কম’র অভিনন্দন »রামু উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ কামরুজ্জামান ভুট্টো’র মায়ের ইন্তেকাল ॥ এমপি কমল ও যুবলীগের শোক »কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের জরুরী সভা ৩০ নভেম্বর »“দেশের মধ্যবিত্ত শ্রেণিকে বিমানে চড়াতে হবে” : সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি »রামুর রশিদনগর ইউনিয়ন যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত »কক্সবাজার সাহিত্য একাডেমীর উদ্যোগে সুফিয়া কামালের জীবনালেক্ষ্য নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত

স্বাধীনতার ৪৪ বছর পর বাইশারীতে বিদ্যুতের আলো

আনন্দে আত্মহারা লোকজন
bbহাফিজুল ইসলাম চৌধুরী: স্বাধীনতা পরবর্তী দীর্ঘ ৪৪ বছর পর বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হলো নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারী ইউনিয়ন। ডিজিটাল যুগেও এতোদিন এ ইউনিয়নের লোকজন ছিলেন অন্ধকারে। বিদ্যুতের আলো পেয়ে গ্রামবাসী বর্তমানে আনন্দে আত্মহারা। শনিবার ৫ ডিসেম্বর বেলা ১২টায় প্রধান অতিথি পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ও বান্দরবান ৩০০ নং আসনের সংসদ সদস্য বীর বাহাদুর উশৈসিং সুইচ টিপে ৫০০ পরিবারের মাঝে আনুষ্ঠানিকভাবে পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগের উদ্বোধন করেন। এ কাজে ব্যায় হয়েছে প্রায় এক কোটি টাকা।
পরে, বেসরকারী সংস্থা এনজেড একতা মহিলা সমিতি, কনসার্ন ইউনিভার্সেল, ইউকেএইড ও এনএআরআরই এর উদ্যোগে আয়োজিত বাইশারী উচ্চবিদ্যালয় মাঠে বিশাল গণমঞ্চে ১ হাজার ৫০০ পাহাড়ি-বাঙালি পরিবারকে ত্রান বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘বিদ্যুৎ আমাদের সংবিধান স্বীকৃত নাগরিক অধিকার। ২০১৮ সালের মধ্যে কেউই আর বিদ্যুৎহীন থাকবে না। ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নের লক্ষে বর্তমান সরকার গ্রামের প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিতে বদ্ধপরিকর। এ লক্ষ্যে সরকার দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিতে কাজ করে যাচ্ছে।
প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আজকের দিনে আমি বলে গেলাম, আগামী তিনবছর পর বাইশারীর চেহারা যদি পরিবর্তন না হয়, তাহলে এই বীর বাহাদুর আপনাদের সামনে আসবেনা’। তিনি আরো বলেন, শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ করেছে। উনার অক্লান্ত পরিশ্রমে বিদ্যুৎ উৎপাদন বেড়ে গেছে। পুরো পার্বত্য এলাকায় বিদ্যুৎ লাইন সম্প্রসারণ করা হচ্ছে। সরকার এগিয়ে যাচ্ছে। এ সময় শেখ হাসিনার পাশেই থাকতে হবে। বঙ্গবন্ধু যেমন বলেছেন, এই জাতীকে মুক্ত করে ছাড়বো, তেমনি করেছেন। তার কন্যা শেখ হাসিনাও দেশের উন্নয়নে এগিয়ে যাচ্ছেন।
ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার খালেদ মাহমুদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন, নাইক্ষ্যংছড়ি জোনের জোন কমান্ডার লে.কর্ণেল হাসান মোরশেদ পিএসসি জি প্লাস, বান্দরবান পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান এবং নাইক্ষ্যংছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আবুল খায়ের।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক তসলিম ইকবাল চৌধুরী ও উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি চোচু মং মার্মার যৌথ পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, একতা মহিলা সমিতির চেয়ারম্যান আনোয়ারা বেগম, জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য লক্ষী পদ দাস, জেলা পরিষদ সদস্য ক্যাউচিং চাক, সহ সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, লামা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ ইসমাঈল, এমপি প্রতিনিধি খাইরুল বশর, কক্সবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জিএম নুর আহমদ মজুমদার, কনসার্ন ইউনিভার্সেল কর্মকর্তা জাহেদ হোসেন, বাইশারী ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল হক প্রমূখ।
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলোয়াত করেন, বাইশারী ইউনিয়ন ওলামা লীগের সভাপতি হাফেজ মোঃ রেজাউল করিম। ত্রিপিটক পাঠ করেন, আওয়ামীলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক উচাহ্লা চাক, গীতা পাঠ করেন বটন কান্তি নাথ।
উল্লেখ্য, শনিবার বাইশারী করলিয়ামুরা সড়কের গর্জন খালের উপর নির্মিত পিআইও ব্রিজ, হলদ্যাশিয়া গর্জন ছড়ার উপর নির্মিত পিআইও ব্রিজ, পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগ স্থাপন ছাড়াও বাইশারী উচ্চবিদ্যালয়ের শ্রেণী কক্ষ সম্প্রসারণ কাজের পাশাপাশি বাইশারী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের নির্মানাধীন মসজিদের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং।
এদিকে শনিবার বাইশারীতে প্রতিমন্ত্রীর আগমনকে ঘিরে পাড়া মহল্লা, সড়ক ও উপ-সড়কে তোরণ নির্মাণ করা হয়েছিল। রঙিন ব্যানারে সাজানো ছিল বাজার ও আশপাশের এলাকা।